fbpx

মুসলিম সাহিত্য সমাজ ও শিখা গোষ্ঠী

আজ আমরা আলোচনা করবো মুসলিম সাহিত্য সমাজ ও শিখা গোষ্ঠী নিয়ে। চলুন শুরু করা যাক। 

ঢাকা মুসলিম সাহিত্য সমাজ ও শিখা গোষ্ঠী প্রতিষ্ঠিত হয় ১৯২৬ সালে ঢাকায়। নানা কারণে মুসলমানরা ও আধুনিক যুগের সূচনা পরবর্তীকালে শিক্ষা দেখে মুসলমানরা পিছিয়ে পড়ে। বিংশ শতাব্দীর প্রথমার্ধে কতিপয় মুসলমান লেখক সমাজ ও সমাজ কারণে ভূমিকা পালন করেন এবং প্রতিষ্ঠা করেন মুসলিম সাহিত্য সমাজ নামক একটি প্রগতিশীল সাহিত্যিক গোষ্ঠী।

মুসলিম সাহিত্য সমাজ ও শিখা গোষ্ঠী

এ সংগঠনের মাধ্যমেই মুক্তবুদ্ধি আন্দোলনের সূত্রপাত হয়। শিখা ছিল এদের মাসিক মুখপাত্র। এ পত্রিকা সম্পর্কে বলা হয় শিক্ষার প্রধান উদ্দেশ্য বর্তমান মুসলমান সমাজের জীবন ও চিন্তাধারার গতির পরিবর্তন সাধন।

শিখা পত্রিকার প্রথম সম্পাদক আবুল হোসেন, তিনি মুসলিম সাহিত্য সমাজের ও সম্পাদক ছিলেন। পরবর্তীতে পত্রিকাটির সম্পাদনা করেন ডঃ কাজী মোতাহার হোসেন, রশীদ করিম ও আবুল ফজল। এ পত্রিকার উপরে লেখা থাকত জ্ঞান যেখানে সীমাবদ্ধ, বুদ্ধি সেখানে আড়ষ্ট, মুক্তি সেখানে অসম্ভব।

শিখা পত্রিকা কে ঘিরে যে কয়জন লেখক ছিলেন তারাই শিখাগোষ্ঠী নামে পরিচিত। এ গোষ্ঠীর প্রধান লেখকগণ হলেন – কাজী আবদুল ওদুদ, আবুল হোসেন, আব্দুল কাদির, কাজী মোতাহার হোসেন প্রমুখ।

বাংলা সাহিত্যের যুগ বিভাগ,মুসলিম সাহিত্য সমাজ ও শিখা গোষ্ঠী
বাংলা সাহিত্যের যুগ বিভাগকেমুসলিম সাহিত্য সমাজ ও শিখা গোষ্ঠী

বাংলা একাডেমি

বিভিন্ন চাকরির পরীক্ষায় লক্ষ করা যায় বাংলা একাডেমি থেকে বিভিন্ন প্রশ্ন করা হয়ে থাকে। বাংলা একাডেমি সম্পর্কে আজকের এই পোস্টে বিস্তারিত আলোচনা করা হবে,চাকরির পরীক্ষার ক্ষেত্রে বিভিন্ন সময় কাজে লাগবে।

১৯৫২ ভাষা আন্দোলনের পরিপ্রেক্ষিতে বাংলা একাডেমি প্রতিষ্ঠিত হয়। ৩ ডিসেম্বর ১৯৫৫ সালে বাংলা একাডেমি প্রতিষ্ঠিত হয়। বাংলা:- ১৩৬২ সালের ১৭ অগ্রহায়ণ বাংলা একাডেমি প্রতিষ্ঠিত হয়।

বাংলা একাডেমী প্রতিষ্ঠার জন্য” বাংলা অ্যাক্যাডেমি অ্যাক্ট-১৯৫৭” আইন পাশ করা হয়। যার মাধ্যমে বাংলা একাডেমি সাহিত্য শাসন দেওয়া হয়।

বাংলা একাডেমি ভবনের পূর্ব নাম ছিল বর্ধমান হাউস, ১৯০৬ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়। বাংলা একাডেমির অবস্থান ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রাঙ্গণে। ভাষা আন্দোলনের সভা বর্ধমান হাউজ প্রভাব বাংলার মুখ্যমন্ত্রী কার্যালয় ছিল।

বাংলা একাডেমীর উদ্বোধন করেন মুখ্যমন্ত্রী আবুল হোসেন সরকার।

প্রতিষ্ঠাকালীন পূর্ব বাংলার শিক্ষা মন্ত্রী ছিলেন আশরাফ উদ্দিন আহমেদ চৌধুরী।

বাংলা একাডেমির মূল মিলনায়তনের নাম আব্দুল করিম সাহিত্য বিশারদ মিলনায়তন।

বাংলা একাডেমি ১৯৬০ সাল হতে পুরস্কার প্রবর্তন করে আসছে।

বাংলা একাডেমী থেকে প্রথম পুরস্কার প্রাপ্ত প্রথম উপন্যাস সূর্য দীঘল বাড়ি। প্রথম তিনি পুরস্কার পান তার নাম আবু ইসহাক।

বাংলা একাডেমি ১৯৭৮ সাল থেকে বইমেলা শুরু করেন।

বাংলা একাডেমির মাসিক মুখপত্র:- লেখা, উত্তরাধিকার।

বাংলা একাডেমী থেকে প্রকাশিত ত্রৈমাসিক পত্রিকার নাম ধানশালিকের দেশ। বাংলা একাডেমী থেকে ষান্মাসিক পত্রিকার নাম:- বাংলা একাডেমি জার্নাল।

বাংলা বর্ণমালা বাংলা ফন্টের প্রকাশকারী বাংলা একাডেমি।

বঙ্গবন্ধুর আত্মজীবনীমূলক গ্রন্থ কারাগারের রোজনামচা প্রকাশিত বাংলা একাডেমী থেকে।

বাংলা একাডেমির প্রথম মহাপরিচালক ডক্টর মাজহারুল ইসলাম।

বাংলা একাডেমির প্রথম পরিচালক ডঃ এনামুল হক।

বাংলা একাডেমির প্রথম সভাপতি মাওলানা আকরাম খাঁ।

হাবিবুল্লাহ সিরাজী হলেন বাংলা একাডেমির বর্তমান মহাপরিচালক।

বাংলা একাডেমীর শ্লোগান:-

মোদের গরব মোদের আশা,আ মরি বাংলা ভাষা।

বাংলা একাডেমিতে বর্তমান বিভাগ রয়েছে চারটি এবং সাময়িক পত্রিকা প্রকাশিত হয় ৬ টি।

মুসলিম সাহিত্য সমাজ ও শিখা গোষ্ঠী নিয়ে যদি কোন প্রশ্ন থাকে করতে পারেন। 

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button