fbpx

সালটা ২০১২

সালটা ২০১২।আমি তখন তৃতীয় শ্রেণীতে।মা-বাবার সাথে বসে টিভি দেখছি। সম্ভবত ২২জুলাই। দেখলাম শহীদ মিনার এর সামনে একটা কফিন।কফিন ঘিরে দাঁড়িয়ে আছে হলুদ পাঞ্জাবি পরা একজন এবং আরো কয়েকজন। কত্ত মানুষ আসছে, ফুল দিচ্ছে,কান্নাকাটি করছে।
আমি ভাবছি কে এমন মারা গেছেন,যার জন্য এত মানুষ দেখতে এসেছেন,কাঁদছেন।
বাবাকে জিজ্ঞেস করলাম।বাবা বললেন, কথাসাহিত্যিক হুমায়ুন আহমেদ মারা গিয়েছেন ১৯ তারিখ।আজ তার মৃতদেহ দেশে আনা হয়েছে।তাই এত মানুষ এসেছে তাঁকে শেষ শ্রদ্ধা জানাতে।আমি তখন জানতাম না হুমায়ুন আহমেদ কে? কথাসাহিত্যিক কি?

কিন্তু আজ জানি।সেদিন যাঁর নিথর দেহটি কদম,গোলাপসহ নানা ফুলের সৌরভে সুরভিত ছিল, অশ্রু সিক্ত হয়েছিল হাজারো মানুষ, সে আর কেউ না আমার অত্যন্ত প্রিয় একজন মানুষ, অন্যতম প্রিয় লেখক,নাটক, চলচিত্র নির্মাতা তো বটেই!বাংলা সাহিত্যের রাজপুত্র,নন্দিত কথাজাদুকর হুমায়ুন আহমেদ!
২০১২ সালে এই দিনে ওপাড়ে পাড়ি জমান কিংবদন্তী লেখক,সাহিত্যজগৎ এর বড় নক্ষত্র হুমায়ুন স্যার। আজ তাঁর নবম প্রয়াত বার্ষিকী। অন্তর এর অন্তস্থল থেকে রইলো শ্রদ্ধা, ভালোবাসা,দোয়া।নূর নবিজী সাল্লাল্লাহু আলাইহিওয়াসাল্লাম এর উছিলায় আল্লাহ তায়ালা আপনাকে জান্নাতবাসী করুক। আমিন।

হুমায়ুন আহমেদ স্যার কে উৎসর্গ করে উনার কিছু উপন্যাস, নাটক,চলচিত্র এবং চরিত্রের নাম দিয়ে একটি কবিতা লেখার চেষ্টা করলাম।ভুল ত্রুটি ক্ষমা সুন্দর দৃষ্টিতে দেখার অনুরোধ রইলো। ধন্যবাদ।

“হিজিবিজি” কল্পনারা “আজ উঠোন পেরিয়ে দু’পা” বাড়িয়েছে,
“হিমু ও কয়েকটি ঝিঁঝিঁপোকা “গেছে “নিশিথিনি”র কাছে।
“হিমুর হাতে কয়েকটি নীলপদ্ম “
“বাঘবন্দি মিসির আলি” নিশ্চয়ই রহস্যের “দেয়াল” ভাংছে!
“দেবী” “একজন মায়াবতী “র সাথে,” পেন্সিলে আঁকা পরি”র খোঁজে!
“লীলাবতী ” “আনন্দ বেদনার কাব্য” নিয়ে “মাতাল হাওয়া”য় মেতেছে “ময়ুরাক্ষী”র তীরে,,
জোছনায় “মেঘের ছায়া” পরেছে কোন এক “নির্বাসন “নীড়ে।
“শুভ্র গেছে বনে”,
“মেঘ বলেছে যাব যাব”..
“মৃন্ময়ীর মন ভালো নেই”
“সে আসে ধীরে”….
“আমরা কেউ বাসায় নেই”,
“শ্যামল ছায়া”য় সবাই গেছে বনে,
ফিরবে হয়তো কোনো এক “শ্রাবণ মেঘের দিন” এ।
“গায়ক মতি মিয়া” মুগ্ধ “কুসুম” এর গানে।
“শুভ্র”,”জোছনা ও জননীর গল্প” লেখে “ফাউন্টেনপেন”এ।
“কালোজাদুকর ” “নন্দিত নরকে”,
“বাকের ভাই” “শঙ্খনীল কারাগার ” এ।
দেশ জুরে তোলপাড় না হয় যেন বাকের ভাইয়ের ফাঁসি,
দক্ষিন হাওয়ায় সে তখন হাসে দুষ্ট হাসি!
“কোথাও কেউ নেই” জেনেও “অপেক্ষা “রুপা”র,
কোন এক “কৃশ্নপক্ষ” এ সে আসবে কবে!
চিরকাল কি সে নিরবেই রবে?
“যে থাকে আখি পল্লবে,তাঁর সাথে কেন দেখা হবে?”

—– ফাতেমা তুন নূর

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Check Also
Close
Back to top button