fbpx
Trending

বন্যা কি ?বন্যার কারণ

কোন অঞ্চলে প্রবল বৃষ্টি হলে নদ-নদী বা ড্রেনেজ ব্যবস্থা নাব্যতা হারিয়ে
ফেলাতে অতিরিক্ত পানি সমুদ্রে গিয়ে নামার আগেই নদ-নদী কিংবা ড্রেন উপচে আশপাশের স্থলভাগ প্লাবিত করে ফেললে তাকে বন্যা বলে।

বন্যার কারণ 


বাংলাদেশে প্রায় জালের মত ছড়িয়ে ছিটিয়ে রয়েছে অসংখ্য নদ-নদী।
বাংলাদেশে প্রায় ৭০০টি নদ নদী রয়েছে।
বাংলাদেশে বার্ষিক বৃষ্টিপাতের
পরিমাণ প্রায় ২৩০০ মিলিমিটার।
অতিবৃষ্টির কারণে বন্যার সৃষ্টিতে
ব্যাপক অবদান রাখে।
বন্যার কারন প্রধান ২টি।
যথা
ক. প্রাকৃতিক কারণ এবং
খ. কৃত্রিম কারণ
বন্যা সৃষ্টির প্রাকৃতিক কারণঃ
১. নদী ভাঙ্গন;
২. মৌসুমী জলবায়ুর প্রভাব;
৩. বজ্য অব্যবস্থাপনা;
৪. উজানের অববাহিকা হতে
আসা পানি;
৫. নদ-নদীর ধারণক্ষমতা কমে
যাওয়া
৬. ভৌগোলিক অবস্থান
৭. ভারী বর্ষণের কারণে সৃষ্ট
জলাবদ্ধতা
৮. সাইক্লোনের কারণে সৃষ্ট জলোচ্ছ¡াস
৯. মূল নদীর গভীরতা কমে যাওয়া

 

বন্যা সৃষ্টির কৃত্রিম কারণঃ
১. নদীর অযাচিত ও অপরিকল্পিত বাঁধ নির্মাণ
২. নদীর অববাহিকায় ব্যাপক বৃক্ষ কর্তন
৩. অপরিকল্পিত নগরায়ণ
গুরুত্বপূর্ণ তথ্য জেনে নিন
অমাবস্যা ও পূর্ণিমায় জোয়ার ভাঁটাজনিত বন্যা ভয়াবহরূপ ধারণ করে।
মৌসুমি বন্যায় ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ সবচেয়ে বেশি হয়।
পার্বত্য এলাকায় আকস্মিক বন্যা সংঘটিত হয়।
জোয়ার ভাঁটাজনিত বন্যা স্বল্পস্থায়ী হয়।
বিশ্বে নীল, হোয়াংহো, ইয়াং সিকিয়াং, গঙ্গা, ব্রহ্মপুত্র প্রভৃতি অববাহিকায় বন্যা সংঘটিত হয় বেশি।
১৯৫৪ থেকে ২০০৪ সালের মধ্যে বন্যা হয়Ñ ১৯৭৪, ১৯৭৮, ১৯৮৪, ১৯৮৮, ১৯৯৮, ২০০৪ সালে।
১৯৮৮ সালের বন্যা
সংঘটিত হয় আগস্ট-সেপ্টেম্বর মাসে

বন্যা প্রজেক্ট, বন্যার কারণ, বন্যা প্রতিবেদন, বন্যা পরিস্থিতি ২০২০, বন্যা নিয়ন্ত্রণের উপায়, বন্যার উপকারিতা, বন্যা মোকাবেলায় করণীয়, বাংলাদেশে বন্যার কারণ,বন্যা


স্থায়ী হয় ১৫-২০ দিন
১৯৯৮ সালের বন্যা
সংঘটিত হয় আগস্ট মাসে
বাংলাদেশে সংঘটিত শতাব্দীর ভয়াবহ বন্যা
স্থায়ী ছিল প্রায় ২ মাসের অধিক সময়
এই দীর্ঘস্থায়ী বন্যায় সবচেয়ে বেশি এলাকা ক্ষতিগ্রস্থ হয়।
বাংলাদেশের মোট ভূ-খন্ডের দুই-তৃতীয়াংশ অর্থাৎ প্রায় ৬৮% ভূ-খণ্ড বন্যায় প্লাবিত হয়
২০০০ সালের বন্যায়
২০০০ সালের বন্যায় প্লাবিত হয় বাংলাদেশের মোট ১৬টি জেলা
২০০০ সালের বন্যায় বাংলাদেশের ফসল নষ্ট হয় মোট ১.৮৪ লক্ষ হেক্টর
২০০০ সালের বন্যা ছিল ভয়াবহ।
২০১৬ সালের বন্যায়
১৯৮৮ সালের বন্যার পর সবচেয়ে ভয়াবহ বন্যা
উত্তর পশ্চিম ও মধ্যাঞ্চলের মোট ১৯টি হেলা প্লাবিত হয়
৩৪ লাখের বেশি মানুষ ক্ষতিগ্রস্থ হয়
২০১৩ সালের বন্যায় প্লাবিত হয় বাংলাদেশের ১৭টি জেলা।
১৯৬০ সালের পর থেকে বাংলাদেশে এ পর্যন্ত বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধ নির্মাণ করা হয়েছে ৮০০০ কি.মি.(প্রায়)।
বাংলাদেশে এ পর্যন্ত বন্যা আশ্রয় কেন্দ্র নির্মাণ করা হয়েছেÑ ৭৪ টি।
নদী ভাঙ্গনে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয় সিরাজগঞ্জ ও চাঁদপুর জেলা।
বাংলাদেশের বরেন্দ্র্র অঞ্চলের পরিবেশ বন্যা নিয়ন্ত্রণ, পানি নিষ্কাষণ ও সেচের কারণে ক্ষতিগ্রস্থ হয়।

 

আপনি জানেন কি???????
১৯৭৪ সালের বন্যায় বাংলাদেশে দুর্ভিক্ষ হয়।

 

আপনি পড়তেছেন বন্যার কারণ ও তার প্রতিকার। 

বন্যা নিয়ন্ত্রণ ব্যবস্থাপনাঃ
বাংলাদেশের প্রাকৃতিক দুর্যোগের মধ্যে অন্যতম দুর্যোগ হল বন্যা।
বন্যা অর্থনৈতিক অবস্থার উপর ব্যাপক প্রভাব ফেলে। তাই বন্যা নিয়ন্ত্রণ ব্যবস্থাপনা জরুরি।
বন্যা নিয়ন্ত্রণ ব্যবস্থাপনা নিম্নরূপঃ
ক. সাধারণ ব্যবস্থাপনা
নদীর দুই তীরে ঘন জঙ্গল সৃষ্টি করা
নদী শাসন ব্যবস্থা নিশ্চিত করা
বন্যার পূর্বাভাস ও সতর্কীকরণ ব্যবস্থার উন্নয়ন নিশ্চিত করা
সরকারীভাবে স্থায়ী প্রশাসনিক কাঠামো গড়ে তোলা

 

খ. শ্রমসাধা ও ব্যয়বহুল ব্যবস্থাপনাঃ
 ড্রেজারের মাধ্যমে পানির প্রবাহ বৃৃদ্ধি করা

 

সমুদ্র তীরে পানির অনুপ্রবেশ বন্ধ করা 

 

সহজ প্রকৌশলগত ব্যবস্থাপনা
বনায়ন সৃষ্টি
বেড়িবাধ নির্মাণ করে পানি উপচে পড়া বন্ধ করা
আশ্রয়কেন্দ্র প্রতিষ্ঠা করা

বন্যার কারণ জানার চেয়ে আমাদের অধিক প্রয়োজন সচেতনতার। 

আপনি কি জানেন প্রতিবছর প্রায় সারা বাংলাদেশে  ৪০০ টির মতো জেলায় বন্যা কিবলিত হয়। আর বন্যা কবলের ফলে প্রায় প্রতি বছর প্রায় ১০০ কোটির টাকার বেশি পরিমাণ ক্ষয় ক্ষতির সম্মুখীন হয়। বাংলাদেশ নদীমাতৃক দেশ । যার কারণে দেশে প্রায় ৭০০ টির মতো নদ নদী রয়েছে। তার মধ্যে প্রায় ৫৭ টি আর্ন্তজাতিক নদী রয়েছে। আর যার কারণে প্রতিবছর পাহাড়ী ঢলের কারণে নদীর কিনারা কানায় কানায় ভরে যায়। 

বন্যার কারণ সমূহ তা জানলাম এখন এর থেকে করণীয় সম্পকে জানতে হবে। 

 বন্যা থেকে প্রতিরোধ এর জন্য করনীয়ঃ

১. বেশি বেশি গাছ লাগানো। 

২. নদীর পাড় যেন মজবুত ও উচুঁ থাকে সেই দিকে লক্ষ্য রাখা। 

৩. ড্রেজার ব্যবস্থা চালু রাখা । 

৪. নদীর পাড়ে বাঁধ দেওয়া । 

৫. নদীর চারদিকে অবৈধ্য স্থাপনা তুলে দেওয়া। 

৬. পরিক্লপিত নগারায়ন গড়ে তোলা। 

বন্যার কারণ আরো রয়েছে । জানতে চান তাহলে ভিজিট করুন। 

বন্যার কারণ এ প্রতিবছর ক্ষতির পাশাপাশি লাভ ও রয়েছে। পলি পড়ে বন্যার কারণ এ ফসলের জমিতে ফসল বেশি উৎপাদন হয়। 

 

বন্যায় প্রতিবছর অনেক ব্যক্তি ঘরছাড়া  হয়ে পড়ে। যার কারণে অনেক বসত ভিটা হারিয়ে নিঃস্ব হয়ে পড়ে। আর যার কারনে সারাজীবনের কিছু মানুষের স্বপ্ন নিমিষেই শেষ হয়ে যায়। 

 

বন্যা থেকে বাচাঁর জন্য প্রয়োজন সুষ্ঠ পদক্ষেপ। সেই সাথে প্রয়োজন বাস্তব উপযোগী পরিকল্পনা। 

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Check Also
Close
Back to top button