fbpx

ইউটিউব

পৃথিবীর যত আধুনিক হচ্ছে আমরা যত ইন্টারনেটের দিকে অগ্রসর হচ্ছি। কাজের জন্য ব্যবহার করা বুঝায়। বর্তমান সময়ের সবচেয়ে জনপ্রিয় সার্চ ইঞ্জিন হচ্ছে গুগল। ভূগোলে আমরা আমাদের যেকোন প্রশ্ন ও সমস্যার বিষয়ে সার্চ দিলে সেই প্রশ্নের সমাধান পেয়ে যাই। ইন্টারনেটে যে কোন সমস্যার সমাধান খুঁজে বর্তমান সাধারণ ব্যাপার হয়ে দাঁড়িয়েছে।

YouTube হলো এমন একটি অনলাইন ওয়েবসাইট বা সার্চ ইঞ্জিন যেখানে ভিডিও আপলোড ও শেয়ার করা হয়ে থাকে। ইউটিউবে মানুষ বিভিন্ন ধরনের ভিডিও আপলোড করে থাকে এবং সেখান থেকে পরবর্তীতে অন্যান্য লোকেরা তাদের প্রয়োজনীয় বিষয় বা সমস্যার সমাধান পেয়ে থাকে। ইউটিউব কেউ সার্চ ইঞ্জিন বলা হয়ে থাকে কারণ youtube-এর ওয়েবসাইটেও গুগলের মতো ‘search box’ রয়েছে। YouTube এর search box এ যখন কিছু search করে লেখা হয়, তখন YouTube তার ফলাফল হিসেবে search result দেখিয়ে দেয়। YouTube এ হাস্যকর ভিডিও,ছবি,গান, কার্টুন সহ অসংখ্য ভিডিও রয়েছে।

সবচেয়ে বেশি বৃদ্ধি পাওয়া ওয়েবসাইট গুলোর মধ্যে ভূগোল এর পরেই ইউটিউব এর অবস্থান। কোম্পানিকে গুগলে নিয়ন্ত্রণ করছে। 2006 সালের অক্টোবর মাসের 9 তারিখে গুগোল ইউটিউব কে 1.65 বিলিয়ন মার্কিন ডলারের বিনিময় করে।

YouTube ২০০৫ সালের ১৪ ফেব্রুয়ারি তে অর্থাৎ আজ থেকে ১৬ বছর আগে। YouTube প্রতিষ্ঠা করেছিল পেপলের ৩ জন প্রাক্তন কর্মচারী তাইওয়ানের স্টিভ চেম, আমেরিকান নাগরিক চাদ হার্লি ও জার্মানের জাওয়েদ করিম। হার্লি ও চেম বলেছিলেন,”ইউটিউব এর মূল ধারণাটি ছিল একটি অনলাইন ডেটিং পরিষেবার ভিডিও সংস্করন এবং এটি হট বা নট ওয়েবসাইট দ্বারা প্রভাবিত”। ২০০৫ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে YouTube company www.youtube.com ওয়েবসাইটটি সক্রিয় করে। মে মাসে ইউটিউব কোম্পানি পাবলিক বেটা চালু করে।

২০০৫ সালের নভেম্বর মাসে রোনালদিনহোকে দেখানো একটি নাইকি কোম্পানির ভিডিও প্রথমবারের মতো এক মিলিয়ন দর্শক সংখ্যায় পৌঁছায়। ওই বছর আবার নভেম্বর মাসে sequoia capital থেকে ৩.৫ মিলিয়ন ডলার ইনভেস্ট পেয়ে ২০০৫ সালের ডিসেম্বরের ১৫ তারিখে YouTube officially launch হয়।

বর্তমানে ইউটিউব ওয়েবসাইটের যে ডিজাইন সেটি launch করা ৩১ মার্চ ২০১০ সালে। মার্চ ২০১০ এ YouTube প্রথমবারের মতো Free streaming সেবা চালু করে। মে ২০১০ এরপর থেকে প্রত্যেকদিন YouTube ২ বিলিয়নের বেশি ভিউজ পেতে শুরু করে। ২০১২ সালে ইউটিউব ব্যবহারকারীর সংখ্যা দাঁড়ায় প্রায় ৮০০ মিলিয়ন। এভাবে ধীরে ধীরে ইউটিউব বিশ্বজুড়ে সবচেয়ে অধিক বৃত্তি প্রাপ্ত হওয়া ওয়েবসাইট গুলোর মধ্যে দ্বিতীয় স্থান লাভ করে।

YouTube এর বর্তমান সিইও সুসান ওজচিকি। তিনি ২০১৪ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে এই পদবি প্রাপ্ত হন। YouTube এর বর্তমান আয় প্রায় ১৫ বিলিয়ন ডলার (২০১৯ সালের তথ্য অনুসারে)। বর্তমানে প্রত্যেকদিন প্রায় ১ বিলিয়ন ঘন্টায় সামগ্রী ইউটিউবে দেখা হয়(২০১৭ সালের তথ্য অনুসারে)।২০১৯ এর মে মাসের তথ্য অনুসারে ইউটিউবে প্রতি মিনিটে মিনিটে 500 ঘণ্টারও বেশি ভিডিও আপলোড করা হয়। বর্তমানে youtube-এর বার্ষিক আয় এক হাজার পাঁচশ কোটি মার্কিন ডলার।

ইউটিউব কে একেক জন একেক মাধ্যম হিসেবে নিয়ে থাকে। কেউ ইউটিউবকে বিনোদনের মাধ্যম হিসেবে নেয়,কেউবা শিক্ষার মাধ্যম হিসেবে। আবার কেউ কেউ ইউটিউব থেকে টাকা আয় করার মাধ্যম হিসেবে ব্যবহার করছে। বর্তমান যুগে ইউটিউব অনেক বড় অবদান রাখছে। ইউটিউব অনেক ভালো কাজেও আসছে আবার কেউ কেউ এটিকে খারাপ কাজের জন্য ব্যবহার করছে। তবে ইউটিউব এর অবদান আমাদের জীবনে অস্বীকার করার মতো নয়

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button